General Knowledge Notes in BengaliNotes

মৌলিক কর্তব্য | Fundamental Duties । মৌলিক দায়িত্বসমূহ

ভারতীয় সংবিধানের মৌলিক কর্তব্য

Rate this post

মৌলিক কর্তব্য – Fundamental Duties

মৌলিক কর্তব্য হল ভারতের সকল নাগরিকের এক নৈতিক দায়দায়িত্ব। মৌলিক কর্তব্যগুলির মূল উদ্দেশ্য হলো দেশের জনগণের মধ্যে দেশাত্মবোধ জাগরিত করা এবং দেশের ঐক্য রক্ষা করা।

  • ভারতীয় নাগরিকদের মৌলিক কর্তব্য এর  ধারণাটি মূল ভারতীয় সংবিধানে ছিল না।
  • ভারতীয় নাগরিকদের মৌলিক কর্তব্যের বিষয়টি ১৯৭৬ সালে ৪২ তম সংবিধান সংশোধনীর মাধ্যমে ভারতীয় সংবিধানে যুক্ত করা হয়েছিল।
  • মৌলিক কর্তব্য পার্ট ৪(A)আর্টিকেল ৫১(A) তে রয়েছে।
  • মৌলিক কর্তব্য সংযোজনের সাথে যুক্ত কমিটি হলো স্বরণ সিং কমিটি( দেখে নাও ভারতের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ কমিটি ও কমিশনের তালিকা
  • ইন্দিরা গান্ধী সরকারের জারি করা জরুরি অবস্থার সময় এই অংশটি যোগ করা হয়েছিল।
  • মৌলিক  কর্তব্যের ধারণাটি নেওয়া হয়েছে সোভিয়েত রাশিয়ার সংবিধান থেকে। ( দেখে নাও ভারতীয় সংবিধানের বিভিন্ন উৎসের তালিকা
  • বর্তমানে সংবিধানে  ১১টি মৌলিক কর্তব্যের কথা বলা রয়েছে।
  • এর মধ্যে ১০টি ৪২ তম সংশোধনীর সময়ে গৃহীত। অন্য যে কর্তব্যের কথা সংবিধানে রয়েছে, তা জোড়া হয়েছে ২০০২ সালে, সংবিধানের ৮৬ তম সংশোধনীতে, অটলবিহারী বাজপেয়ী সরকারের আমলে।
৪২তম সংবিধান সংশোধনীকে ভারতীয় সংবিধানের ক্ষুদ্র সংস্করণ বলা হয়ে থাকে

এই কর্তব্যগুলি বিধিবদ্ধ, আইনের দ্বারা একে বলবৎ করা যায় না। তবে কোনও একটি বিষয়ের বিচার চলাকালীন আদালত এগুলি গণ্য করতেও পারে। একজন নাগরিক যে মৌলিক অধিকার ভোগ করেন, তার সাপেক্ষেই মৌলিক কর্তব্যের বিষয়টি সংবিধানে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

সংবিধান পালন করা

প্রতীকে নাগরিকের কর্তব্য সংবিধানে বলা হয়েছে এমন সকল বিষয় পালন করা। সংবিধান, রাষ্ট্রীয় আদর্শ, জাতীয় পতাকা, জাতীয় সংগীতকে মান্য করা। অর্থাৎ যখন, জাতীয় সংগীত ( জন গণ মন ) গাওয়া হয় বা জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয় তখন প্রত্যেকের উচিত সাবধান অবস্থায় দাঁড়িয়ে সম্মান জানানো।

  • জাতীয় পতাকা উত্তোলনের সময় দেখতে হবে, যাতে পতাকা পরিছন্ন হয়। নোংরা, কুঁচকানো এবং ছেড়া পতাকা উত্তোলন করা চলবে না।
  • যদি ছেড়া অবস্থায় পতাকা রাস্তা বা কোথাও পরে থাকতে দেখা যায়, সঙ্গে সঙ্গে টুকরোগুলি একত্রিত করে পুঁতে মাটি চাপা দিয়ে দিতে হবে, যাতে পায়ে না লাগে।
  • সংসদ, বিধানসভায় তৈরী আইন-কানুন মেনে চলা। আদালতের দেওয়া নির্দেশ সম্মানের সাথে পালন করা।

আদর্শ পালন করা

স্বাধীনতা লাভের জন্য আমাদের দেশে যে সকল ভারতবাসী আন্দোলনে যোগ দিয়েছিলেন,  তাঁদের প্রত্যেককে সম্মান প্রদান করা ও তাঁদের প্রতি শ্রদ্ধা ও আদর্শ পালন করা।

দেশের অখণ্ডতা ও একতা বজায় রাখা

প্রত্যেক নাগরিকের কর্তব্য দেশের একতা বজায় রাখা। ছোটো-খাটো বিষয় নিয়ে ঝগড়া না করা। ধর্ম, ভাষা, প্রদেশ, সম্প্রদায় এইসব ভাবনা থেকে দূরে থাকা। দেশের সাম্প্রদায়িকতা রক্ষা করা।

দেশকে রক্ষা করা

দেশকে রক্ষা করা সকল নাগরিকের কর্তব্য। সেনাবাহিনীতে যোগ দিয়ে আমাদের দেশের জন্য সেবা করা উচিত। দেশের সংকট কালে সকলকে সহযোগিতার হাত বাড়ানোর জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে। দেশের শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখতে হবে।

সংরক্ষণ ও সমান ভাতৃত্ববোধ

সকল ভারতবাসীর নিজেদের মধ্যে ভাতৃত্ববোধ জাগানো প্রয়োজন, যাতে যে কোনো ধর্ম, ভাষা, উৎসবে এর প্রভাব পরে। মহিলাদের সম্মানহানি ঘটে এমন সব প্রথা ত্যাগ করা উচিত।

দেশের গৌরব রাখা

আমাদের মিশ্র সংস্কৃতির ঐতিহ্যকে মূল্য দেওয়া ও তাকে রক্ষা করা- আমাদের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য পৃথিবীর পবিত্রতম ও মূল্যবান ঐতিহ্যের অন্যতম, এ ঐতিহ্য পৃথিবীর ঐতিহ্যের অংশও বটে।

পরিবেশ এবং প্রাকৃতিক সম্পদগুলিকে রক্ষা  করা

আমাদের চারপাশের প্রাকৃতিক সম্পদ যেমন – বন, জলাশয়, নদীনালা, বন্যপ্রাণী এদেরকে রক্ষা করা আমাদের প্রত্যেকের কর্তব্য। প্রাকৃতিক সম্পদ রক্ষা হলেই মানব জাতি সুরক্ষিত হবে। বন রক্ষা করার সাথে-সাথে সবুজ বনায়ন তৈরী করাও দরকার। জল, বায়ু, দূষণ মুক্ত রাখার জন্য সবাইকে সচেতন হতে হবে। পাশাপাশি জলের অপচয় বন্ধ করতে হবে।

বৈজ্ঞানিক দৃষ্টিকোণ

বৈজ্ঞানিক দৃষ্টিকোণ, মানববাদ এবং চিন্তাশক্তির বিকাশ করা। দীর্ঘদিনের অন্ধবিশ্বাস, কুপ্রথা ত্যাগ করা। ভাবনার বিকাশ ঘটিয়ে জ্ঞান বাড়াতে হবে।

সর্বজনীন সম্পত্তি রক্ষা করা

সর্বজনীন সম্পত্তি গুলি রক্ষা করা এবং নিজেদের মধ্যে শান্তি বজায় রাখা। যদি কেউ কোনো সম্পত্তি যেমন – বাস, দালানকোঠ, সরকারি সম্পত্তি ক্ষতি করার চেষ্টা করে  তবে তাকে বাঁধা দেওয়া ।

সমষ্টিগত গতিবিধির পদোন্নতি করা

ব্যক্তিগত ও যৌথভাবে সমস্ত ক্ষেত্রে উৎকর্ষের জন্য সংগ্রাম যাতে দেশ ক্রমাগত উপর দিকে উঠতে পারে।

শিশু শিক্ষার প্রতি নজর দেওয়া

ছয় বছর থেকে চৌদ্দ বছর বয়স্ক সকল বালক বালিকাদের স্কুলে পাঠানো এবং তাদের লেখা পড়ার প্রতি যত্নবান হওয়া সকল পিতা-মাতার কর্তব্য

এই ১১তম মৌলিক কর্তব্যটি ২০০২ সালে ৮৬তম সংবিধান সংশোধনীর মাধ্যমে যুক্ত করা হয়েছিল

আরো দেখে নাও :

গুরুত্বপূর্ণ কমিটি/ কমিশন । Important Committees and Commissions in India

রাজ্য পুনর্গঠন । States Re-organisation

ভারতের পার্লামেন্ট বা সংসদ

রাষ্ট্রপুঞ্জ | জাতিসংঘ | সম্মিলিত জাতিপুঞ্জ | United Nation

অর্থবিল-  PDF ও MCQ সহ

প্রশ্নোত্তরে রাষ্ট্রবিজ্ঞান –  পার্ট ১

ভারতীয় সংবিধানের WRIT বা লেখ

সংবিধানের তফসিল

ভারতের পার্লামেন্ট বা সংসদ

To check our latest Posts - Click Here

Telegram
Back to top button
error: Alert: Content is protected !!
১০০টি বিজ্ঞানের প্রশ্ন ও উত্তর UNSC দ্বারা বৈশ্বিক সন্ত্রাসী হিসেবে তালিকাভুক্ত হলেন আবদুল রহমান মক্কি বন্দে ভারত এক্সপ্রেস সম্পর্কিত ১০টি তথ্য Nobel 2022 Winner List in Bengali Current Affairs in Bangla – 26th October 2022