প্রতিদিন বিনামূল্যে মক টেস্ট ও বিভিন্ন ধরণের নোটস-এর জন্য আমাদের টেলিগ্রাম গ্রুপ ও ফেসবুক পেজে যুক্ত হয়ে যাও । 


All NotesNotes

নিউটনের গতিসূত্রসমূহ ও ব্যাখ্যা – PDF । Newtons Laws of Motion

Newtons Laws of Motion

নিউটনের গতিসূত্রসমূহ ও ব্যাখ্যা – PDF । Newtons Laws of Motion

দেওয়া রইলো নিউটনের গতিসূত্র সমূহ ও তার ব্যাখ্যা।

১৬৮৭ খ্রিস্টাব্দে ৫ই জুলাই স্যার আইজাক নিউটন তার বিখ্যাত “প্রিন্সিপিয়া (Philosophiæ Naturalis Principia Mathematica )” নামক গ্রন্থে বস্তুর গতিসংক্রান্ত বিভিন্ন ঘটনাবলির পরীক্ষা ও বিশ্লেষণের মাধ্যমে তিনটি মূল্যবান সূত্রের প্রস্তাবনা করেন। এই সূত্র তিনটি নিউটনের গতিসূত্র নামে পরিচিত।

এই সূত্রগুলির কোনো তত্ত্বগত (Theoretical) প্রমাণ নেই। কিন্তু পদার্থবিদ্যা (Physics) এবং কারিগরি বিদ্যার  অনেক সমস্যার সমাধান সম্ভব হয়েছে নিউটনের গতিসূত্র দ্বারা। এই কারণে এই পদার্থবিদ্যায় এই সূত্রগুলির গুরুত্ব অপরিসীম।
নিউটনের তিনটি গতিসূত্র : – 

নিউটনের প্রথম গতিসূত্র

বাইরে থেকে প্রযুক্ত বল দ্বারা বাধ্য না করলে স্থিরবস্তু চিরকাল স্থির থাকবে এবং গতিশীল বস্তু চিরকাল সমগতিতে সরলরেখায় গতিশীল থাকবে।

প্রথম গতিসূত্র থেকে দুটি বিষয় জানা যায়-

  1. জাড্যের ধারণা ও
  2. বলের গুণগত সংজ্ঞা।

জাড্যের ধারণা: স্থিরবস্তুর স্থিতিশীল অবস্থায় থাকা এবং গতিশীল বস্তুর গতিশীল অবস্থায় থাকার প্রবণতা বা ধর্মকে বলা হয় জাড্য (Inertia) বা জড়তা ধর্ম। (Latin শব্দ iners =idle বা অলস) প্রথমটিকে স্থিতিজাড্য ও দ্বিতীয়টিকে গতিজাড্য বলা হয়।

বলের গুণগত সংজ্ঞা: বাইরে থেকে যা প্রয়ােগ করে কোনাে বস্তু বা সংস্থার জাড্য ধর্মের পরিবর্তন করা হয় বা করার চেষ্টা করা হয়, তাকেই বল (Force) বলা হয়।

নিউটনের দ্বিতীয় গতিসূত্র

বস্তুর ভরবেগ পরিবর্তনের হার বস্তুর ওপর প্রযুক্ত বলের সমানানুপাতিক। বল যেদিকে প্রযুক্ত হয় ভরবেগের পরিবর্তনও সেইদিকে ঘটে।

দ্বিতীয় গতিসূত্র থেকে দুটি বিষয় জানা যায়-

  1. ভরবেগের ধারণা ও
  2. বলের পরিমাণগত সংজ্ঞা।

ভরবেগ: ভর ও বেগের সমন্বয়ে কোনাে গতিশীল বস্তুতে যে গতীয় ধর্মের উদ্ভব হয়, তাকেই ভরবেগ (Momentum) বলা হয়। এটি একটি ভেক্টর রাশি। এর অভিমুখ বেগের অভিমুখের সঙ্গে অভিন্ন।

বলের পরিমাণগত সংজ্ঞা: বস্তুর ভর ও তাতে সৃষ্ট ত্বরণের গুণফলই হল বলের পরিমাপ।

অর্থাৎ, প্রযুক্ত বল(P)= বস্তুর ভর(m) x ত্বরণ(f)
বা, P=mf

নিউটনের তৃতীয় গতিসূত্র

প্রত্যেক ক্রিয়ারই সমান ও বিপরীত প্রতিক্রিয়া রয়েছে।

প্রকৃতিতে বিচ্ছিন্ন বলের অস্তিত্ব নেই। অর্থাৎ, বল সর্বদা জোড়ায় জোড়ায় অবস্থান করে একটি ছাড়া অন্যটির অস্তিত্ব থাকা সম্ভব নয় এবং একটি ক্রিয়াশীল হলে অন্যটিও একই সঙ্গে সক্রিয় হয়। এ ছাড়াও ক্রিয়া-প্রতিক্রিয়ার গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য হল যে, এরা সর্বদা দুটি ভিন্ন বস্তুর ওপর কাজ।

Download Section : 

  • File Name :  নিউটনের গতিসূত্রসমূহ ও ব্যাখ্যা – PDF । Newtons Laws of Motion
  • File Size : 1.5 MB
  • No. of Pages : 02
  • Format : PDF
  • Language : Bengali
  • Subject : Physics
Click Here to Download PDF

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!