Current Topics

স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড – Student Credit Card Application Procedure

Student Credit Card

Rate this post

স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড – Student Credit Card Application Procedure

উচ্চ শিক্ষার জন্য পড়ুয়াদের সামনে নয়া দিগন্তের উন্মোচন করল পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার। সম্প্রতি পশ্চিমবঙ্গে চালু হয়ে গেলো Student Credit Card বা ছাত্র ক্রেডিট কার্ড / স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড। আসুন দেখে নিয়ে এই স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড সম্পর্কিত বিস্তারিত তথ্য।

স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড কি?

কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়াদের জন্য একটি নির্ধারিত ক্রেডিট কার্ড এই স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড। এই কার্ডের সাহায্যে খুব সহজেই পড়ুয়ারা স্বল্প সুদে কোনো আয়-সংক্রান্ত নথি ব্যাংকে জমা দেওয়া ছাড়াই ব্যাঙ্ক থেকে লোন নিতে পারবে।

বিধানসভা ভোটার আগে তৃণমূল কংগ্রেস তাদের ইস্তাহারে এই স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। সেইমতো ৩০শে জুন ২০২১ থেকে চালু হয়ে গেল স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড।

স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড এর সুবিধা

  • ছাত্রের ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত স্বল্প সুদে ঋণ পাবে।
  • ছাত্রের একবারেই ১০ লক্ষ টাকা ঋণ পাবেন৷ আবার চাইলে ধাপে ধাপে প্রয়োজন অনুযায়ী সর্বোচ্চ দশ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋণ নেওয়া যাবে৷
  • গ্যারান্টার হবে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার।
  • মাধ্যমিক থেকে পোস্ট ডক্টরেট পর্যন্ত এই ঋণ পাওয়া যাবে।
  •  কোর্স ফি, টিউশন ফি, হোস্টেল ফি, কম্পিউটার- ল্যাপটপ কেনার খরচের জন্যও এই প্রকল্প থেকে ঋণ পাওয়া যাবে৷
  • ঋণ শোধ করার জন্য ১৫ বছর সময় দেওয়া হবে।
  • পশ্চিমবঙ্গের সমস্ত ব্যাঙ্ক থেকে এই সুবিধা পাওয়া যাবে।
  • সহজেই অনলাইনে আবেদন করা যাবে।
  • রাজ্য, রাজ্যের বাইরে এমন কি বিদেশে উচ্চশিক্ষার জন্যও এই ঋণ কাজে লাগানো যাবে৷
  • বিশদে জানতে রাজ্য সরকারের টোল ফ্রি নম্বর – ১৮০০১০২৮০১৪।

স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড কারা পাবেন ?

  • বয়স ১৮ থেকে ৪০ এর মধ্যে হয়ে হবে।
  • পড়ুয়ারা দশম শ্রেণির বোর্ড পরীক্ষা উত্তীর্ণ হওয়ার পরই এই স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের জন্য আবেদন করা যাবে৷
  •  স্নাতক, স্নাতকোত্তর, ডিপ্লোমা, গবেষণার জন্য এই ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে ঋণ পাওয়া যাবে৷
  • বিভিন্ন সরকারি- বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে আইএএস, আইপিএস, ডব্লিউবিসিএস -এর মতো প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার প্রস্তুতি নিচ্ছেন যাঁরা, তাঁরাও এই ঋণ নিতে পারবেন৷
  • বাংলায় টানা ১০ বছর ধরে বসবাসকারী যে কোনও ভারতীয় ছাত্রছাত্রী এই স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের জন্য আবেদন করতে পারবেন৷
  • শিক্ষার্থীরা চাকরি পাওয়ার আগে পর্যন্ত এই সুবিধা পাবেন।

কি কি ডকুমেন্ট লাগবে ?

  • শিক্ষার্থীর ও অভিভাবকের এক কপি করে রঙিন ফটো ও স্বাক্ষর
  • শিক্ষার্থীর
    • আধার কার্ড
    • প্যান কার্ড (বাধ্যতামূলক নয়)
    • দশম শ্রেণির রেজিস্ট্রেশন সার্টিফিকেট
  • অভিভাবকের ঠিকানার প্রমাণপত্র
  • কোর্সে ভর্তি হওয়ার রিসিপ্ট
  • কোর্স ফি বা টিউশন ফি লেখা আছে এমন কোনো নথি।

বিস্তারিত জানতে দেখে নিন অফিসিয়াল নোটিশClick Here  

আবেদন করার পক্রিয়া

  1.  রাজ্য সরকারের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট (www.wb.gov.in) বা banglaruchchashiksha.wb.gov.in-তে যান। অথবা সরাসরি https://wbscc.wb.gov.in/-তে যান।
  2. এর পরে ‘Student Registration’-এ ক্লিক করুন।
  3. একটি নয়া পেজ খুলে যাবে। সেখানে যা তথ্য চাওয়া হয়েছে সেগুলি দিতে হবে।
  4.  সেখানে নিজের নাম, ঠিকানা, মোবাইল নম্বর, ইমেল আইডি-সহ বিভিন্ন তথ্য দিতে হবে। আধার কার্ড থাকা বা না থাকার ভিত্তিতে সেই রেজিস্ট্রেশন ফর্ম ভিন্ন হবে। পাসওয়ার্ডও দিতে হবে। তারপর ‘Register’-এ ক্লিক করতে হবে।
  5. যে ফোন নম্বর দেওয়া হয়েছে, তাতে ওটিপি যাবে। সেই ওটিপি লিখে ‘Verify’ করতে হবে।
  6. রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ হলে স্ক্রিনে একটি ‘Registration ID’ আসবে। ফোনেও লগইন সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য পাঠানো হবে।
  7. এর পরে  wbscc.wb.gov.in/ -তে গিয়ে Student Login-তে ক্লিক করুন। নয়া একটি পেজ খুলে যাবে।
  8. প্রাপ্ত রেজিস্ট্রেশন আইডি ও পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করতে হবে।
  9.  ‘Dashboard’ খুলে যাবে। সেখানে ‘Apply Now’-তে ক্লিক করুন।
  10. একটি নয়া পেজ খুলে যাবে। সেখানে বিভিন্ন তথ্য দিতে হবে। আধার কার্ড থাকা বা না থাকার ভিত্তিতে সেই রেজিস্ট্রেশন ফর্ম ভিন্ন হবে। পাশাপাশি ‘Download Undertaking Documents’ থাকবে। পড়ুয়াদের প্যান কার্ড না থাকলে ‘Download Undertaking Documents’ ডাউনলোড করতে হবে। ঠিকানা, ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট-সহ যাবতীয় তথ্য দেওয়ার পর ‘Save & Continue’ করুন।
  11. তারপর একটি নয়া পেজ খুলে যাবে। আধার কার্ড থাকা বা না থাকার ভিত্তিতে সেই ফর্ম ভিন্ন হবে। আধার কার্ড থাকলে সেখানে আবেদনকারীর ছবি, সহ-আবেদনকারীর ছবি, আবেদনকারীর স্বাক্ষর, সহ-আবেদনকারী বা অভিভাবকের স্বাক্ষর, আধার কার্ড, সহ-আবেদনকারীর ঠিকানার প্রমাণপত্র (ভোটার আইডি), আবেদনকারীর ভরতির রসিদের ছবি, প্যান কার্ড, সহ-আবেদনকারীর প্যান কার্ড, আবেদনকারীর কোর্স ফি সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় নথি আপলোড করতে হবে। আধার কার্ড না থাকলে সেখানে আবেদনকারীর ছবি, সহ-আবেদনকারীর ছবি, আবেদনকারীর স্বাক্ষর, সহ-আবেদনকারী বা অভিভাবকের স্বাক্ষর, দশম শ্রেণির রেজিস্ট্রেশন, সহ-আবেদনকারীর ঠিকানার প্রমাণপত্র (ভোটার আইডি), আবেদনকারীর ভরতির রসিদের ছবি, প্যান কার্ড, সহ-আবেদনকারীর প্যান কার্ড, আবেদনকারীর কোর্স ফি সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় নথি আপলোড করতে হবে।
  12.  যাবতীয় নথি আপলোডের পর ‘Save & Continue’ করুন।
  13.  একটি নয়া পেজ খুলে যাবে। সেখানে যাবতীয় নথি এবং তথ্য মিলিয়ে দেখে নিন। তারপর ‘Submit Application’ ক্লিক করুন। কোনও তথ্য বা নথি পরিবর্তন করতে হলে ‘Edit Loan application’-এ ক্লিক করতে হবে। একবার সাবমিট হয়ে গেলে তথ্য পালটানো যাবে না।
  14.  তারপর ‘Dashboard’-এ দেখাবে ‘Application Submitted to HOI’। তার অর্থ হল যে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানের কাছেই আবেদনপত্র চলে গিয়েছে।
  15.  স্কুলের তরফে আবেদনপত্র পাঠানো হবে উচ্চ শিক্ষা দফতরকে। তখন ‘Dashboard’-এ দেখাবে ‘Application forwarded by to HOI to HED’।

স্টুডেন্টস ক্রেডিট কার্ডের ওয়েবসাইট কনফিগারেশন পরিবর্তনের সাথে আবেদন প্রক্রিয়ায় পরিবর্তন আসতে পারে। আমরা একটি সম্যক ধারণা দিয়ে রেখেছি। বাকিটা নিজেদেরকে ভালো করে চেক করে করে নিতে হবে।

দেখে নিন স্ক্রিনশট সহ আবেদনের সম্পূর্ণ পক্রিয়া  –  Click Here 

Official Websites : www.wb.gov.in | https://banglaruchchashiksha.wb.gov.in | https://wbscc.wb.gov.in

আরও দেখে নাও :

To check our latest Posts - Click Here

Telegram

Related Articles

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!
Nobel 2022 Winner List in Bengali Current Affairs in Bangla – 26th October 2022 বাংলাদেশের নব নির্মিত পদ্মা সেতু – জেনে নিন আকর্ষণীয় তথ্য