General Knowledge Notes in BengaliNotes

নিষ্ক্রিয় গ্যাস কাকে বলে? নিষ্ক্রিয় গ্যাস কয়টি ও কি কি?

Inert Gases - Noble Gases List, Uses and Applications

নিষ্ক্রিয় গ্যাস কাকে বলে? নিষ্ক্রিয় গ্যাস কয়টি ও কি কি?

প্রিয় পাঠকেরা, আজকে আমাদের আলোচ্য বিষয় – নিষ্ক্রিয় গ্যাস কাকে বলে? নিষ্ক্রিয় গ্যাস কয়টি ও কি কি?।

নিষ্ক্রিয় গ্যাস কাকে বলে?

পর্যায় সারণির যেসব মৌলের পরমাণু সমূহ ইলেকট্রন আদান, প্রদান বা শেয়ারের মাধ্যমে বন্ধন গঠন করে না তাদেরকে নিষ্ক্রিয় গ্যাস বলা হয়।

নিষ্ক্রিয় গ্যাস কয়টি ও কি কি?

নিষ্ক্রিয় গ্যাস মোট ৭টি। এগুলো হলো : হিলিয়াম (He), নিয়ন (Ne), আর্গন (Ar), ক্রিপ্টন (Kr), জেনন (Xe), রেডন (Rn) এবং ওগানেসন (Og)। 

নিষ্ক্রিয় গ্যাস গুলি নিষ্ক্রিয় কেন?

হিলিয়াম বাদে অন্যায় নিষ্ক্রিয় গ্যাসগুলির সর্ববহিঃস্থ শক্তিস্তরে অষ্টক পূর্ণ থাকে। মৌলের সর্ববহিঃস্থ শক্তি ইলেক্ট্রন দ্বারা পরিপূর্ণ থাকলে মৌল একটি অতি সুস্থিত ইলেক্ট্রনবিন্যাস পায় যা সহজে পরিবর্তিত হতে চায় না। এরূপ সুস্থিত ইলেক্ট্রনবিন্যাসের জন্যই নিষ্ক্রিয় গ্যাস গুলি রাসায়নিক ভাবে অত্যন্ত নিষ্ক্রিয়।

দেখে নাও : পর্যায় সারণির বিভিন্ন ধরণের মৌল

নিষ্ক্রিয় গ্যাসগুলিকে বিরল গ্যাসও বলা হয় কারণ প্রকৃতিতে এগুলি খুব সামান্য পরিমানে পাওয়া যায়।

নিষ্ক্রিয় গ্যাসের উৎস

  • নিষ্ক্রিয় গ্যাসের প্রধান উৎস হল বাতাস।
  • আবার অনেকক্ষেত্রে প্রাকৃতিক গ্যাসেও নিষ্ক্রিয় গ্যাস পাওয়া যায়। যেমন কোনো কোনো প্রাকৃতিক গ্যাসের কূপে প্রচুর পরিমানে হিলিয়াম গ্যাস পাওয়া যায়।
  • আবার কিছু কিছু তেজস্ক্রিয় আকরিক যেমন পিচব্লেন্ড, মোনাজাইট, থোরিয়ানাইট, ক্লিভাইয়ট -এর মধ্যে হিলিয়াম ও আর্গন গ্যাস আবদ্ধ থাকে।
  • পৃথিবীর বিভিন্ন স্থানে উষ্ণ প্রসবল গুলির জলে হিলিয়াম ও নিয়ন দ্রবীভূত থাকে।
  • বিভিন্ন তেজস্ক্রিয় মৌলের বিভাজনের সময় কিছু নিষ্ক্রিয় গ্যাস উৎপন্ন হয়। যেমন রেডিয়ামের তেজস্ক্রিয় বিভাজনের সময় রেডন উৎপন্ন হয়।

দেখে নাও : পরমাণুর মৌলিক কণিকাসমূহ – ইলেক্ট্রন প্রোটন নিউট্রন

নিষ্ক্রিয় গ্যাসসমূহের ইলেক্ট্রন বিন্যাস

নিষ্ক্রিয় গ্যাসসমূহের ইলেক্ট্রন বিন্যাস নিচে দেওয়া রইলো।

  • He (2) : 1s²
  • Ne (10) : 1s² 2s² 2p⁶
  • Ar (18) : 1s² 2s² 2p⁶ 3s² 3p⁶
  • Kr (36) : 1s² 2s² 2p⁶ 3s² 3p⁶ 3d¹º 4s² 4p⁶
  • Xe (54) : [Kr ] 4d¹º 5s² 5p⁶
  • Rn (86) : [Xe ] 4f¹⁴ 5d¹º 6s² 6p⁶
নিষ্ক্রিয় গ্যাসের ইলেকট্রন বিন্যাসঃ
নিষ্ক্রিয় গ্যাসের ইলেকট্রন বিন্যাসঃ

দেখে নাও : ১১৮টি মৌলের পারমাণবিক সংখ্যা ও প্রতীক তালিকা

নিষ্ক্রিয় গ্যাসের ভৌত ধর্ম সমূহ

  • নিস্ক্রিয় গ্যাসগুলো সাধারণ তাপমাত্রা ও চাপে এক পরমাণুক গ্যাস হিসেবে অবস্থান করে।
  • নিস্ক্রিয় গ্যাসগুলি বর্ণহীন, স্বাদহীন, গন্ধহীন।
  • নিষ্ক্রিয় মৌলগুলির পরমাণুসমূহের মধ্যে দুর্বল ভ্যানডার ওয়ালস্ বল ছাড়া অন্য কোন আকর্ষণ বল কাজ করে না। ফলে এদের গলনাংক এবং স্ফুটনাংক অত্যন্ত কম।
  • প্রতি লিটার জলে নিস্ক্রিয় গ্যাসের দ্রাব্যতা অনেক কম।
  • এই গ্যাসগুলির গলনাঙ্ক ও স্ফুটনাঙ্ক অত্যন্ত কম।
  • নিস্ক্রিয় গ্যাসসমূহের মধ্যে দুর্বল আকর্ষণ বল থাকার কারণে এদের গলনতাপ ও বাষ্পীয়ভবন তাপ কম।
  • নিস্ক্রিয় গ্যাসের আয়নিকরণ শক্তি সবচেয়ে বেশি।
  • পারমাণবিক সংখ্যা বৃদ্ধির সাথে সাথে নিস্ক্রিয় গ্যাসসমূহের আয়নিকরণ শক্তি কম হয়।
  • আকর্ষণ বল কম থাকার কারণে নিস্ক্রিয় গ্যাসগুলোকে তরলে পরিণত করা অনেক কঠিন।
  • নিম্নচাপে নিয়ন গ্যাসে বিদ্যুৎক্ষরণ ঘটালে লাল আলো পাওয়া যায়। একইভাবে ক্রিপটন গ্যাসে সবুজ আলো পাওয়া যায়।
নিষ্ক্রিয় গ্যাসের ভৌত ধর্ম

বিভিন্ন নিষ্ক্রিয় গ্যাস সম্পর্কিত তথ্য

বিভিন্ন নিষ্ক্রিয় গ্যাস সম্পর্কিত বিভিন্ন তথ্য দেওয়া রইলো।

হিলিয়াম

  • পর্যায় সংখ্যা : ১
  • পরমাণু ক্রমাঙ্ক : ২
  • ব্যবহার :
    • অ্যাজমা ও অন্যান্য রক্তক্ষরণজনিত রোগের চিকিৎসায় ব্যবহৃত হয়।
    • গ্যাস বেলুনে গ্যাস হিসাবে ব্যবহৃত হয়।
    • ওয়েল্ডিংয়ের কাজে ব্যবহৃত হয়।
    • কলকারখানার বিস্ফোরক রোধক হিসাবে ব্যবহৃত হয়।
    • ক্রায়োজেনিক হিসাবে ব্যবহৃত হয়।
    • ‘ম্যাগনেটিক রেসোনেন্স ইমেজিংয়ের জন্য তরল হিলিয়াম ব্যবহৃত হয়।
    • সেমিকন্ডাক্টর প্রসেসিংয়ের জন্য ব্যবহৃত হয়।
    • লেসার প্রসেসিংয়ের জন্য ব্যবহৃত হয়।

নিয়ন

  • পর্যায় সংখ্যা : ২
  • পরমাণু ক্রমাঙ্ক : ১০
  • ব্যবহার :
    • টেলিভিশন টিউবে নিয়ন ব্যবহৃত হয়।
    • ক্রায়োজেনিক হিসাবে নিয়ন ব্যবহৃত হয়।
    • সাইনবোর্ডে নিয়ন ব্যবহৃত হয় যার মধ্যে দিয়ে তড়িৎ পাস করলে উজ্জ্বল বর্ণের সৃষ্টি হয়।
    • লেসারে ব্যবহৃত হয়।
    • ওয়েব মিটার টিউবে ব্যবহৃত হয়।
    • বজ্রপাত থেকে বৈদ্যুতিক দ্রব্যগুলিকে রক্ষা করতে ঢাল হিসাবে ব্যবহৃত হয়।
    • বৈদ্যুতিক বাতিতে নিয়ন ব্যবহৃত হয়।
    • বিভিন্ন ধাতুর উপস্থিতিতে বিভিন্ন বর্ণের সৃষ্টিতে সক্ষম যা ল্যান্ডস্কেপিং এবং ইন্টেরিয়র ডিজাইনের জন্য ব্যবহৃত হয়।

আর্গন

  • পর্যায় সংখ্যা : ৩
  • পরমাণু ক্রমাঙ্ক : ১৮
  • ব্যবহার :
    • নিষ্ক্রিয় বায়ুমণ্ডল সৃষ্টিতে ব্যবহৃত হয়।
    • টাইটেনিয়ামের উৎপাদনে ব্যবহৃত হয়।
    • ওয়েল্ডিংয়ের কাজে ব্যবহৃত হয়।
    • বৈদ্যুতিক বাল্বের ঘর্ষণ রোধে ব্যবহৃত হয়।
    • গাড়ির চাকার টায়ারে ব্যবহৃত টায়ারকে রক্ষার জন্য এবং রাস্তায় শব্দ যাতে কম সৃষ্টি হয়।
    • ডাবল গ্লেজ উইন্ডোজে ব্যবহৃত হয়।
    • রেডিও আইসোটোপ ডেটিং হিসাবে ব্যবহৃত হয়।
    • হৃৎপিণ্ডের চিকিৎসার জন্য ব্যবহৃত হয়।
    • থ্রি-ডি প্রিন্টিংয়ে ব্যবহৃত হয়।
    • ধাতুবিদ্যায় ব্যবহৃত হয় কারণ এটি মরিচা রোধে সক্ষম।

ক্রিপ্টন

  • পর্যায় সংখ্যা : ৪
  • পরমাণু ক্রমাঙ্ক : ৩৬
  • ব্যবহার :
    • ফ্লুরোসেন্ট বাতির টিউবে ক্রিপ্টন ব্যবহৃত হয়।
    • সাইনবোর্ডে এটি ব্যবহৃত হয়।
    • হাইস্পিড ফোটোগ্রাফিতে ব্যবহৃত ফ্ল্যাশ ল্যাম্পে এটি ব্যবহৃত হয়।
    • এটি শক্তি গবেষণা পরীক্ষার নিউক্লিয়ার সংযোজনে ব্যবহৃত হয়।
    • তড়িৎ চুম্বকীয় ক্যালোরিমিটার নির্মাণে এটি ব্যবহৃত হয়।
    • স্যাটেলাইটের জ্বালানি হিসাবে ব্যবহৃত হয়।
    • ইমেজিং এয়ারওয়েজে এমআরআই-এ এটি ব্যবহৃত হয়।

জেনন

  • পর্যায় সংখ্যা : ৫
  • পরমাণু ক্রমাঙ্ক : ৫৪
  • ব্যবহার :
    • ফোটোগ্রাফিক প্লেটে এটি ব্যবহৃত হয়।
    • উচ্চচাপ আর্ক বাতিতে এটি ব্যবহৃত হয়।
    • রুবি লেজারে ব্যবহৃত বাতিতে এটি ব্যবহৃত হয়।
    • খাদ্য প্রস্তুতিকরণ ও প্রক্রিয়াকরণের জন্য ব্যবহৃত ব্যাকটেরিয়াজাত বাতিতে ইহা ব্যবহৃত হয়।
    • স্পেসক্র্যাফটে ইহা ব্যবহৃত হয়।
    • জেনন বাতি ব্যাকটেরিয়া নষ্ট করতে ব্যবহৃত হয়।
    • সিলিকন মাইক্রোপ্রসেসরের রক্ষাকারী স্তর হিসাবে ব্যবহৃত হয়।
    • রক্তে লোহিত রক্ত কণিকার সংখ্যা বৃদ্ধি করতে অক্সিজেন ও জেননের মিশ্রণ ব্যবহৃত হয়।
    • এনএমআর স্পেকটোস্কোপিতে ইহা ব্যবহৃত হয়।
    • হৃদপিন্ড, মস্তিষ্ক এবং ফুসফুসের ইমাজিং-এ ইহা ব্যবহৃত হয়।

রেডন

  • পর্যায় সংখ্যা : ৬
  • পরমাণু ক্রমাঙ্ক :৮৬
  • ব্যবহার :
    • এটি একধরনের তেজস্ক্রিয় নিষ্ক্রিয় পদার্থ যা ক্যান্সার থেরাপিতে ব্যবহৃত হয়।
    • টিউমারের চিকিৎসায় এটি ব্যবহৃত হয়।
    • রেডিয়েশন থেরাপিতে এটি ব্যবহৃত হয়।
    • এটির সাহায্যে বায়ুর ভর পরিমাপ করা হয়।
    • জলবিদ্যা গবেষণায় এটি ব্যবহৃত হয়।
    • ভূমিকম্প ভবিষ্যদ্ববানীতে এটি ব্যবহৃত হয়।
    • তেজস্ক্রিয় পচনের মাধ্যমে পোলোনিয়াম উৎপাদনে এটি ব্যবহৃত হয়।
    • মাটিতে উর্বরতার পরিমাণ পরিমাপ করতে এটি ব্যবহৃত হয়।

To check our latest Posts - Click Here

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!