Telegram
General Knowledge Notes in BengaliGeography Notes

অপ্রচলিত শক্তি কাকে বলে ? উদাহরণ ও উৎস – PDF Download

Unconventional Energy Resources Examples

2.3/5 - (3 votes)

অপ্রচলিত শক্তি কাকে বলে ? উদাহরণ ও উৎস

যে সমস্ত পূরণশীল প্রাকৃতিক সম্পদ থেকে বর্তমানে বিদ্যুৎ  উৎপাদন কম কিন্তু ভবিষ্যতে বিদ্যুৎ উৎপাদনের সম্ভাবনা প্রচুর তাদের অপ্রচলিত শক্তির উৎস বলা হয়ে থাকে। আর এই সমস্ত শক্তির উৎস থেকে যে বিদ্যুৎ উৎপাদন করা হয়, তাকে অপ্রচলিত বা অচিরাচরিত শক্তি বলে। পৃথিবীর মোট বিদ্যুৎশক্তির ৩% হলো অপ্রচলিত শক্তি। এই শক্তি সম্পর্কে বলা হয় – “It is the energy of the future”.

সৌর শক্তি

  • প্রতিঘন্টায় ভূ-পৃষ্ঠে পতিত সূর্যকিরণের তাপশক্তি প্রায় ২১০০০ বিলিয়ন টন কয়লার তাপশক্তির সমান।
  • প্রতিদিন ভূপৃষ্ঠে প্রতি বর্গমিটারে প্রাপ্ত গড় সৌর শক্তি ১.৩৬ কিলোওয়াট-আওয়ার বিদ্যুৎশক্তির সমান।
  • ফটোভোল্টিক সেল বা সৌর কোষের মাধ্যমে সূর্য রশ্মিকে কাজে লাগিয়ে যখন বিদ্যুৎ উৎপাদন করা হয় তখন তাকে সৌরশক্তি বলা হয়।

সৌর শক্তি থেকে উৎপন্ন বিদ্যুৎ বিভিন্ন কাজে লাগানো হয় । যেমন –

  • শীতপ্রধান দেশে ঘর গরম রাখতে, জল গরম করতে, রান্না করতে সৌর কুকার ব্যবহার করা হয়।
  • গ্রামাঞ্চলে, পাহাড়ের ওপরে রাস্তার আলো সৌর শক্তির সাহায্যে চালানো হয়।
  • বিশেষ ভাবে তৈরী সৌর কুকারের সাহায্যে রান্না করা যায়।
  • সোলার ড্রায়ার ব্যবহার করে ফসলের আদ্রতা দূর করা এবং সংরক্ষণ করা হয়।
  • বাড়ির ছাদে সোলার প্যানেল লাগিয়ে বর্তমানে অনেকক্ষেত্রে গৃহস্থালির বিদ্যুৎয়ের চাহিদা অনেকটাই মেটানো সম্ভব।
সোলার প্যানেল
সোলার প্যানেলের সাহায্যে সৌর শক্তি উৎপাদন

ভারতের প্রধান সৌরশক্তি উৎপাদন কেন্দ্র গুলি হল –

রাজ্যসৌরশক্তি উৎপাদন কেন্দ্র
গুজরাটপাটান, বিটা, মিঠাপুর, রাজকোট, সুরেন্দ্রনগর
রাজস্থানফালোরি ,পোখরান ,যোধপুর
মধ্যপ্রদেশনিমাচ
তেলেঙ্গানানিজামাবাদ, জুরালা
মহারাষ্ট্রকাটল,মুলশি, ওসমানাবাদ
তামিলনাড়ুকোয়েম্বাটুর, মায়িলাদুঠুরাই, শিব গঙ্গা
ওড়িশাপাটাপুর ,খুরদা, গঞ্জাম ,কটক ,কানিহা ,টাঙ্গী, রেঙ্গালি
উত্তর প্রদেশবরাবানকি
কর্ণাটকবেলগাম, কোলার
পশ্চিমবঙ্গজমুরিয়া
রতের প্রধান প্রধান সৌরশক্তি উৎপাদন কেন্দ্র

ভারতীয় রাজ্যগুলির মধ্যে গুজরাটে সৌর শক্তির প্রচলন সবচেয়ে বেশি

বায়ুশক্তি

বায়ুপ্রবাহের শক্তিকে কাজে লাগিয়ে বায়ু প্রবাহ পথে উইন্ডমিলের মাধ্যমে যে শক্তি উৎপাদন করা হয় তাকে বায়ুশক্তি বলা হয়। বায়ু শক্তি উৎপাদনের জন্য একটি ধাতব খুঁটির উপরে ধাতব ব্লেড লাগানো থাকে যা বায়ুপ্রবাহের সাথে সাথে ঘুরতে থাকে। এই ঘূর্ণায়মান পাখার সাথে ডায়নামো যুক্ত থাকে, বায়ুর বলে পাখা ঘোরার সাথে সাথে ডায়নামো চললে বিদ্যুৎ শক্তির উৎপাদন হয়।

উইন্ডমিলের সাহায্যে বিদ্যুৎ উৎপাদন
উইন্ডমিলের সাহায্যে বিদ্যুৎ উৎপাদন

মরুভূমি, উপকূল ও সমুদ্র অঞ্চলে যেখানে একমুখী বায়ু সর্বদা উচ্চবেগে প্রবাহিত হয় সেই সমস্ত জায়গায় উইন্ডমিলের সাহায্যে বিদ্যুৎ শক্তি উৎপাদন সহজসাধ্য।

জল সেচ, ধান ভাঙ্গা, গম ভাঙ্গা, খড় কাটা ও লবণাক্ত জলের অপসারণ ইত্যাদি কাজে বায়ু শক্তি ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হয়।

ভারতের প্রধান বায়ুশক্তি উৎপাদন কেন্দ্র গুলি হল –

রাজ্য বায়ুশক্তি উৎপাদন কেন্দ্র
গুজরাটকচ্ছ, সৌরাষ্ট্র, লাম্বা
তামিলনাড়ুতামিলনাড়ুর উপকূল, কন্যাকুমারীর মুপ্পানডাল
পশ্চিমবঙ্গসন্দুরবনের সাগরদ্বীপ
রাজস্থানচিতোরগড়ের দেওঘর গ্রাম, জয়সলমীর
ভারতের প্রধান বায়ুশক্তি উৎপাদন কেন্দ্র তালিকা

ভারতীয় রাজ্যগুলির মধ্যে তামিলনাড়ুতে সৌর শক্তির প্রচলন সবচেয়ে বেশি

ভূতাপ শক্তি

ভূ-অভ্যন্তরের তাপকে কাজে লাগিয়ে শক্তি উৎপাদন করাকে ভূতাপ শক্তি বলা হয়। এটি একটি অচিরাচরিত শক্তি যা পরিবেশ দূষণ ঘটায় না।

ভূতাপ শক্তি বিদ্যুৎ উৎপাদনে, ফসলকে ঝারাই মাড়াই করতে, ক্ষুদ্র কুটির শিল্প এবং উৎপাদন প্রক্রিয়ায় ব্যবহৃত হয়। দুর্ভাগ্যের বিষয় হলো ভূতাপ শক্তি উৎপাদনে ভারত সেইভাবে উন্নতি লাভ করতে পারেনি। ভারত খুব স্বল্প পরিমাণ ভূতাপ শক্তি উৎপাদন করে।

আগ্নেয়গিরি, উষ্ণপ্রসবন, গিসার প্রভৃতি জায়গায় ভূতাপ শক্তি কেন্দ্র গড়ে ওঠে।

লাদাখের পুগাতে ভূতাপ শক্তি কেন্দ্র গড়ে তোলার পরিকল্পনা রয়েছে।

জোয়ার ভাটা শক্তি

জোয়ার ভাটা একটি প্রাকৃতিক ঘটনা। জোয়ার এবং ভাটার ফলে সৃষ্ট স্রোতকে কাজে লাগিয়ে টারবাইন ব্যবহার করে বিদ্যুৎ উৎপাদন করা যায়।

সমুদ্র ও নদী উপকূল যেখানে জোয়ার-ভাটা পরিলক্ষিত হয়ে থাকে, সেই সমস্ত স্থানে জোয়ার-ভাটা শক্তি কেন্দ্র গড়ে তোলা হয়।

গুজরাটের কচ্ছ উপসাগরে জোয়ার-ভাটা শক্তি কেন্দ্র গড়ে তোলার কাজ চলছে।

OTEC

OTEC কথাটির পূর্ণ অর্থ হলো Ocean Thermal Energy Conversion।

সমুদ্রপৃষ্ঠের ও সমুদ্রজলের গভীরে তাপমাত্রার পার্থক্য হয়। এই পার্থক্যকে কাজে লাগিয়ে সামুদ্রিক তাপীয় উষ্ণতাকে বিদ্যুত্শক্তিতে রূপান্তর ঘটানো হয়।  এই পদ্ধতিকেই OTEC বলা হয়ে থাকে ।

ভারতে OTEC এর ব্যবহার এখনো সেরকম শুরু হয়নি।

এই নোটটির PDF ফাইল নিচের ডাউনলোড সেকশন থেকে ডাউনলোড করে নাও ।

Download Section :

  • File Name : অপ্রচলিত শক্তি কাকে বলে _ উদাহরণ ও উৎস – বাংলা কুইজ
  • File Size : 1.8 MB
  • Format : PDF
  • No. of Pages: 03
  • Language : Bengali

আরও দেখে নাও :

To check our latest Posts - Click Here

Related Articles

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!
Nobel 2022 Winner List in Bengali Current Affairs in Bangla – 26th October 2022 বাংলাদেশের নব নির্মিত পদ্মা সেতু – জেনে নিন আকর্ষণীয় তথ্য