Telegram
General Knowledge Notes in BengaliHistory Notes

গৌতম বুদ্ধ ও বৌদ্ধ ধর্ম | বৌদ্ধ ধর্মের ইতিহাস

Gautama Buddha

Rate this post

গৌতম বুদ্ধ ও বৌদ্ধ ধর্ম – বৌদ্ধ ধর্মের ইতিহাস

বন্ধুরা আজ আমরা নিয়ে এসেছি প্রাচীন ভারতের ইতিহাসের একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ টপিক – গৌতম বুদ্ধ ও বৌদ্ধ ধর্ম নিয়ে । বৌদ্ধ ধর্মের ইতিহাস । আমরা সংক্ষেপে তথ্য সমৃদ্ধ ভাবে এই টপিকটি কভার করার চেষ্টা করেছি । আশা করি তোমাদের ভালো লাগবে । gautam budhabudha dhormer itihas

আরও দেখে নাও : মহাবীর ও জৈন ধর্মের ইতিহাস – তীর্থঙ্কর

গৌতম বুদ্ধের জীবনী

গৌতম বুদ্ধের জীবনী সম্পর্কিত বিস্তারিত তথ্য নিচে দেওয়া রইলো ।

জন্ম

৫৬৩ খ্রিস্টপূর্বাব্দে ( মতান্তরে ৫৬৬) বৈশাখী পূর্ণিমার দিন নেপালের কপিলাবস্তু নিকট লুম্বিনী উদ্যানে ক্ষত্রিয় শাক্য পরিবারে গৌতম বুদ্ধ জন্মগ্রহণ করেছিলেন।

পরিবার পরিচয়

  • পিতা – শুদ্ধোধন (শাক্য রাজবংশ)
  • মাতা – মায়া দেবী (কোশালা রাজবংশ)
  • মাসী –  গৌতমী (বুদ্ধকে লালন পালন করেন)
  • স্ত্রী –  যশোধরা / গোপা / বিম্বা
  • পুত্র – রাহুল

আরও দেখে নাও : গৌতম বুদ্ধ কুইজ – Quiz on Gautama Buddha

অপর নাম

অপর নাম :  গৌতম, সিদ্ধার্থ, শাক্যমুনি, তথাগত

দাম্পত্য

  • ১৬ বছর বয়সে  গোপা (যশোধরা) নামে জনৈক এক  শাক্যকুমারীর সাথে বিবাহ হয়।
  • এরপর ১৩ বছ সংসার ধর্ম পালন করেন।
  • তাঁদের একমাত্র পুত্র সন্তানের নাম রাহুল

গৃহত্যাগ

  • একজন বৃদ্ধ (an old man), একজন রোগী (a diseased person), একজন তপস্বী (an ascetic) এবং একটি মৃতদেহ (a dead body)  দেখে তিনি ব্যথিত হন।
  • পুত্রের জন্মের পর সংসার ধর্মে আর জড়িয়ে পড়ার ভয়ে ২৯ বছর বয়সে এক গভীর রাতে তিনি সংসার ত্যাগ   করেন। এই ঘটনাকে ‘মহাভিনিষ্ক্রমণ’ বলা হয়।

বুদ্ধত্ব লাভ

  • প্রথমে তিনি আলারা কালমা নামক এক ঋষির শিষ্যত্ব গ্রহণ করেন।
  • তাঁর পরবর্তী শিক্ষক ছিলেন উদ্রক রামপুত্র
  • পরে তিনি তপস্বীদের সঙ্গ ত্যাগ করে গয়ার কাছে উরুবিল্ব নামক স্থানে নৈরঞ্জনা নদীর তীরে একটি অশ্বত্থ গাছের নীচে গভীর ধ্যানে মগ্ন হন।
  • এখানেই তিনি বোধি লাভ করেন।
  • সুজাতা নামে এক চাষির মেয়ে তাঁকে পায়েস খাওয়ান।
  • যে বৃক্ষের নীচে তিনি বোধি লাভ করেন সেতি বোধিবৃক্ষ এবং এই জায়গাটি পরে বুদ্ধগয়া নামে পরিচিত হয়।
  • বোধি লাভের পর তিনি বুদ্ধ বা তথাগত নামে পরিচিত হন।

ধর্মপ্রচার

  • প্রথম ধর্মপ্রচার করেন সারনাথের মৃগদাব অরণ্যে পাঁচশিষ্য (বাস্প, ভদ্রিয়, অশ্বজিৎ, মহানামা ও কৌন্দিন্য) এর কাছে।
  • এঁদের একত্রে বলা হয় পঞ্চভিক্ষু। এই ঘটনা ‘ধর্মচক্র প্রবর্তন’ নামে পরিচিত।
  • তাঁর দীক্ষিত প্রথম সন্ন্যাসিনী হলেন তাঁর বিমাতা গৌতমী

দেহত্যাগ

  • ৮০ বছর বয়সে মল্ল মহাজনপদের রাজধানী কুশিনগরে ৪৮৩ খ্রিস্টপূর্বাব্দে (মতান্তরে ৪৮৬) দেহত্যাগ করেন।
  • এই ঘটনা ‘মহাপরিনির্বান’ নামে পরিচিত।

বৌদ্ধ ধর্ম সম্পর্কিত কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য

আর্যসত্যঃ

  • ১) সংসারে দুঃখকষ্ট আছে।
  • ২) এই দুঃখের কারন ও আছে।
  • ৩) এই দুঃখ কষ্ট নিবারণের উপায়ও আছে।
  • ৪)   এই দুঃখ কষ্টের অবসানের জন্য সত্য পথ অবলম্বন করতে হবে।

অষ্টাঙ্গিক মার্গঃ

  • ১) সৎ সংকল্প                 Right Determination
  • ২) সৎ চিন্তা                    Right Memory
  • ৩) সৎ বাক্য                   Right Speech
  • ৪) সৎ ব্যবহার                Right Action
  • ৫) সৎ জীবনযাপন         Right Livelihood
  • ৬) সৎ চেষ্টা                   Right Exercise
  • ৭) সৎ দৃষ্টি                     Right Observation
  • 8) সৎ সমাধি                  Right Meditation

পঞ্চশীলঃ

১) লোভ ২) হিংসা ৩) অসত্য ৪) দুর্নীতি ৫) অন্যায় – এগুলি না করা

বৌদ্ধধর্মে ত্রিরত্নঃ

  • বুদ্ধ (The Enlightened)
  • ধর্ম (Doctrine)
  • সংঘ ( Monastic Order)

গৌতম বুদ্ধের জীবনের বিভিন্ন ঘটনা ও তার প্রতীক

গৌতম বুদ্ধের জীবনের বিভিন্ন ঘটনাচিহ্ন
জন্ম (Birth)পদ্মফুল ও ষাঁড়
মহাভিনিষ্ক্রমণ (Renunciation)ঘোড়া
বোধিলাভ/নির্বাণ (Enlightenment)বোধি বৃক্ষ
ধর্মচক্র প্রবর্তন (First Sermon)চাকা
মহাপরিনির্বাণ (Death)স্তূপ
বুদ্ধদেবের জীবনের বিভিন্ন ঘটনার প্রতীকী

বৌদ্ধ সংগীতি / বৌদ্ধ সম্মেলন 

প্রথম বৌদ্ধ সম্মেলন
(৪৮৩ খ্রিষ্টপূর্বাব্দ)
রাজগৃহের সপ্তপর্ণী গুহাতে হয়েছিল। এটি অনুষ্ঠিত হয়েছিল মগধের রাজা অজাতশত্রুর আমলে। সভাপতি ছিলেন মহাকাশ্যপ। আনন্দ ও উপালি সুত্ত পিটক ও বিনয় পিটক পাঠ করেন।
দ্বিতীয় বৌদ্ধ সম্মেলন
(৩৮৩ খ্রিষ্টপূর্বাব্দ)
প্রথমটির ঠিক ১০০ পর এটি হয়েছিল। মগধের রাজা কালাশোকের উদ্যোগে বৈশালী তে অনুষ্ঠিত হয়েছিল। সভাপতি ছিলেন সাবাকামি। বৌদ্ধ ধর্মের অনুগামীরা স্থবিরমাদিন ও মহাসংঘিকাশ নামে দুটি দলে বিভক্ত হয়ে পড়ে।
তৃতীয় বৌদ্ধ সম্মেলন
(২৫০ খ্রিষ্টপূর্বাব্দ)
মৌর্য সম্রাট অশোকের তত্ত্বাবধানে পাটলিপুত্রে অনুষ্ঠিত হয়। সভাপতি ছিলেন মোগালীপুত্ত তিস্যা। এই সময় অভিধম্ম পিটক রচিত হয়। পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তে বৌদ্ধ সন্ন্যাসীদের পাঠানোর পরিকল্পনা হয়েছিল।
চতুর্থ বৌদ্ধ সংগীতি
(৭২ খ্রিষ্টাব্দ)
কাশ্মীরের কুন্দলবনে রাজা কনিস্কের তত্ত্বাবধানে অনুষ্ঠিত হয়। সভাপতি ছিলেন বসুমিত্র, সহকারি সভাপতি ছিলেন অশ্বঘোষ। বৌদ্ধ ধর্ম হীনযান ও মহাযান এ বিভক্ত হয়ে পড়ে। ত্রিপিটকের উপর সংস্কৃত টিকা বসুমিত্রের মহাবিভাষা এই সভাতেই সংকলিত হয়।

গোষ্ঠী বিভাজন

বৌদ্ধ ধর্ম মূলত তিনটি ভাগে বিভক্ত হয়ে যায় –

১) হীনযান      ২) মহাযান       ৩) বজ্রযান

হীনযান

  • বুদ্ধের প্রদত্ত  প্রকৃত শিক্ষাকে গুরুত্ব দিত।
  • মূর্তি পূজায় বিশ্বাস করত না
  • তাঁরা পালি ভাষাকে প্রাধান্য দিতেন।
  • অনুশাসন ও ধ্যানের মাধ্যমে মুক্তির পথ খুঁজতেন।
  • এটিকে ‘দক্ষিণী বৌদ্ধবাদ’ বা ‘Southern Buddhism’ বলা হয়। কারণ এটি দক্ষিণ ভারতে বিস্তার লাভ করে।
  • এ ছাড়াও  শ্রীলঙ্কা, থাইল্যান্ড, মায়ানমার, ইন্দোনেশিয়া তে এর প্রভাব দেখা যায়।

মহাযান

  • এঁরা অজাগতিক বুদ্ধতে বিশ্বাস করতেন।
  • মূর্তিপূজায় বিশ্বাস করতেন এবং পূজার মাধ্যমে মুক্তি খুঁজতেন।
  • সংস্কৃত ভাষাকে বেশি প্রাধান্য দিতেন।
  • এটিকে ‘উত্তুরে বৌদ্ধবাদ’ বা ‘Northern Buddhism’ বলা হয়। কারণ এটি উত্তর ভারতে বিস্তার লাভ করে।
  • এ ছাড়াও চীন, কোরিয়া, জাপান এ এর প্রভাব দেখা যায়।

বজ্রযান

  • বজ্র নামক যাদু শক্তির মাধ্যমে মুক্তির পথ খুঁজতেন।
  • এটি পূর্ব ভারত মূলত বাংলা, বিহারে প্রভাব বিস্তার করে।

বৌদ্ধ সাহিত্য

পালি ভাষায় রচিত গ্রন্থ

১) ত্রিপিটক – পিটক কথার অরথ হল ঝুড়ি কারণ বুদ্ধের বাণীগুলি পাতার উপর লিখে ঝুড়িতে রাখা হত। তিনটি পিটক নিয়ে ত্রিপিটক।

  • সুত্ত পিটক- বুদ্ধের বাণী এবং উপদেশ
  • বিনয় পিটক- সংঘের নিয়মাবলী
  • অভিধম্ম পিটক- বৌদ্ধধর্মের দর্শন

২) মিলিন্দাপানহো – বৌদ্ধ ভিক্ষু নাগসেনের লেখা। এটি ইন্দো গ্রিক রাজা মিনান্দার এবং নাগসেনের কথোপকথন।
৩) দীপবংশ ও মহাবংশ – এখান থেকে শ্রীলঙ্কার কথা জানা যায়।
৪) জাতকের গল্প – বুদ্ধের পূর্বজন্ম সম্বন্ধে লেখা আছে।

সংস্কৃত ভাষায় রচিত গ্রন্থ

১)  অশ্বঘোষের লেখা ‘বুদ্ধচরিত’, ‘সৌন্দরানন্দ’, ‘সুত্রালংকার’
২)  বসুমিত্রের লেখা  ‘মহাবিভাষা’
৩)  নাগার্জুনের লেখা ‘শতসহস্রিকা প্রজ্ঞাপারমিতা’, ‘মাধ্যমিক সূত্র’

বিখ্যাত বৌদ্ধ রাজা

১) হর্যঙ্ক বংশের রাজা বিম্বিসার
২) হর্যঙ্ক বংশের রাজা অজাতশত্রু
৩) কোশালার রাজা প্রসেনজিৎ
৪) মৌর্য সম্রাট অশোক
৫) ইন্দো গ্রিক রাজা  মিনান্দার
৬) কূষাণ রাজা কনিস্ক
৭) পুষ্যাভুতি বংশের রাজা হর্ষবর্ধন
৮) পাল রাজা – গোপাল, ধর্মপাল, রামপাল

নিচের ডাউনলোড সেকশন থেকে এই নোটটির পিডিএফ ফাইল ডাউনলোড করে নাও ।

Download Section

  • File Name : গৌতম বুদ্ধ ও বৌদ্ধ ধর্ম
  • File Size : 1 MB
  • No. of Pages : 05
  • Format : PDF
  • Language : Bengali
  • Subject : Ancient Indian History

To check our latest Posts - Click Here

Related Articles

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!
Nobel 2022 Winner List in Bengali Current Affairs in Bangla – 26th October 2022 বাংলাদেশের নব নির্মিত পদ্মা সেতু – জেনে নিন আকর্ষণীয় তথ্য