Telegram
General Knowledge Notes in BengaliHistory Notes

মগধের উত্থান – পার্ট ৩ – নন্দ বংশ

Nanda Dynasty

Rate this post

নন্দ বংশ

হর্যঙ্ক ও শিশুনাগ বংশের পরে মগধে রাজত্ব করেছিল নন্দ বংশ ।

১. মহাপদ্মনন্দ

 বাণভট্ট ও গ্রিক লেখক কুইনটাস কার্টিয়াসের তথ্যানুসারে মহাপদ্মনন্দ ( ক্ষৌরকার ) কালাশোক-কে ছুরি মেরে হত্যা করে মগধে নন্দ বংশের প্রতিষ্ঠা করেন।

পুরান, এবং জৈন ও বৌদ্ধ গ্রন্থে মহাপদ্মনন্দকে নীচবংশ-সম্ভূত বা শুদ্র বলা হয়েছে।

 পুরানে মহাপদ্মনন্দকে একরাট (একচ্ছত্র সম্রাট ), সর্বক্ষত্রিয়ছেত্তা বা সর্বক্ষত্রান্তক (সকল ক্ষত্রিয় রাজার উচ্ছেদকারী ) এবং দ্বিতীয় পরশুরাম বলা হয়েছে।

 তাঁর বিশাল সৈন্যের জন্য মহাপদ্মনন্দকে উগ্রসেনা বলা হতো।

 মহাপদ্মনন্দকে বলে হয় – “The first empire builder of Indian History”।

ড: রাধাকুমুদ বন্দ্যোপাধ্যায়-এর মতে, “মহাপদ্মনন্দ ছিলেন উত্তর ভারতের প্রথম মহান ঐতিহাসিক সম্রাট” 

 তিনি কলিঙ্গে একটি সেচখাল নির্মাণ করেন।

 মহাপদ্মনন্দের পরে তাঁর আট পুত্র পর পর সিংহাসনে বসেন তবে ছোট পুত্র ধননন্দ ছিলেন এদের মধ্যে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য

২. ধননন্দ

 নন্দ বংশের শেষ রাজা ছিলেন ধননন্দ।

 গ্রিক সাহিত্যে তাঁকে অগ্রামিস (Agrames ) বলা হতো।

 ধননন্দের বিশাল সেনাবাহিনী ছিল গ্রিক লেখক কার্টিয়াসের তথ্য অনুসারে ধননন্দের –

      • ২০,০০০ – অশ্বারোহী
      • ২০০,০০০ – পদাতিক বাহিনী
      • ২,০০০ – রথ
      • ৩,০০০ – হস্তী ছিল ।

 তাঁর বিশাল সেনাবাহিনীর জন্যই বিশ্বজয়ী আলেক্সজেন্ডার তাঁর আমলে ভারত আক্রমণ করলেও মগধ আক্রমন করতে সাহস করেননি।

 এই বিশাল সেনাবাহিনীর ব্যয় নির্বাহের জন্য ধননন্দ জনসাধারণের উপর প্রভূত কর চাপিয়েছিলেন এবং ইতিহাসে অত্যাচারী রাজা হিসেবে কুখ্যাত ছিলেন।

 ধননন্দ ছিলেন জৈন ধর্মালম্বী।

 ধননন্দের রাজধানী ছিল পাটলিপুত্রে।

 

To check our latest Posts - Click Here

4 Comments

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!
Nobel 2022 Winner List in Bengali Current Affairs in Bangla – 26th October 2022 বাংলাদেশের নব নির্মিত পদ্মা সেতু – জেনে নিন আকর্ষণীয় তথ্য