শিখ সাম্রাজ্যের ইতিহাস - বাংলা কুইজ

শিখ সাম্রাজ্যের ইতিহাস

শিখগুরুদের ইতিহাস

১. গুরু নানক (১৪৬৯ – ১৫৩৯ খ্রিস্টাব্দ )

  • শিখধর্মের প্রবর্তক এবং শিখদের প্রথম গুরু ।
  • লাহোরের নিকট তালবন্দী গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন ।
  • মূর্তিপূজার ঘোর বিরোধিতা করেছিলেন ।
  • লঙ্গরখানা প্রতিষ্ঠা করেছিলেন ।
  • ভগবানের ব্যাখ্যা করতে তিনি নির্গুণ ও নিরাকার শব্দগুলির ব্যবহার করেছিলেন ।

২. গুরু অঙ্গদ (১৫৩৯ – ১৫৫২ খ্রিস্টাব্দ )

  • শিখদের দ্বিতীয় গুরু ।
  • প্রকৃত নাম ভাই লেহান ।
  • পাঞ্জাবি ভাষার গুরুমুখী স্ক্রিপ্ট রচনা করেন ।
  • তাঁর আমলে লঙ্গরখানা জনপ্রিয় হয়ে ওঠে ।
  • শিখদের শারীরিক এবং আধ্যাত্মিক বিকাশের জন্য মাল আখাড়া তৈরী করেছিলেন ।

৩. গুরু অমরদাস (১৫৫২- ১৫৭৪ খ্রিস্টাব্দ )

  • শিখদের তৃতীয় গুরু ।
  • শিখ সম্প্রদায়কে ২২ টি মনজিশে বিভক্ত করেছিলেন ।
  • সতীদাহ ও পর্দাপ্রথার বিরুদ্ধে প্রচার করেছিলেন ।
  • বিধবা বিবাহ সমর্থন করেছিলেন ।
  • আকবরকে অমুসলিমদের ওপরে ধর্মীয় কর তুলে নেবার জন্য অনুরোধ করেছিলেন ।

৪. গুরু রামদাস (১৫৭৪- ১৫৮১ খ্রিস্টাব্দ )

  • শিখদের চতুর্থ গুরু ।
  • শিখদের বিবাহরীতি “আনন্দ কারাজ” এর প্রবর্তক ।
  • হারমিন্দর সাহিব বানানোর জন্য মুঘল সম্রাট আকবর রামদাসকে জমি দান করেছিলেন ।
  • হারমিন্দর সাহিবের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছিলেন হাজি মিয়াঁ মীর ।
  • অমৃতসর শহরটির ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনা করেছিলেন ।

৫. গুরু অর্জুনদেব (১৫৮১- ১৬০৬ খ্রিস্টাব্দ )

  • শিখদের পঞ্চম গুরু ।
  • আদি গ্রন্থ রচনা করেছিলেন ।
  • অমৃতসর এবং কারাতপুরের নির্মাণকার্য সম্পন্ন করেছিলেন ।
  • জাহাঙ্গীরের বিদ্রোহী পুত্র খসরুকে সাহায্য করার জন্য জাহাঙ্গীর গুরু অর্জুনদেবকে হত্যা করেন ।
  • শিখদের প্রথম শহীদ – “শাহিদে-দি-সরতাজ” ( The Crown of Martyrs)

৬. গুরু হরগোবিন্দ (১৬০৬ – ১৬৪৪ খ্রিস্টাব্দ )

  • শিখদের ষষ্ঠ গুরু ।
  • সবচেয়ে বেশি সময়ের জন্য শিখগুরু ছিলেন ।
  • শিখদের একটি সামরিক জাতিতে পরিণত করেছিলেন ।
  • আকাল তখ্ত স্থাপনা করেন ।
  • মুঘল সেনাদের পরাস্ত করেন ।
  • “সাচ্চা পাদশাহ” উপাধি নেন ।
  • তাঁর রাজধানী কারতারপুরে স্থাপনা করেন ।
  • শিখদের কাছে মিরি ও পিরি ( দুটি চাকু ) রাখার উপদেশ দেন ।



৭. গুরু হররায় (১৬৪৪- ১৬৬১ খ্রিস্টাব্দ )

  • শিখদের সপ্তম গুরু ।
  • ঔরঙ্গজেবের ভ্রাতা দারাশিকোকে আশ্রয় দেবার জন্য ঔরঙ্গজেব গুরু হররায়কে মিথ্যে ইসলাম বিরোধী আখ্যা দিয়ে হত্যা করেন ।

৮. গুরু হরকিষণ (১৬৬১- ১৬৬৪ খ্রিস্টাব্দ )

  • শিখদের অষ্টম গুরু ।
  • মাত্র ৮ বছর বয়সে গুটিবসন্তে আক্রান্ত হয়ে মারা যান ।

৯. গুরু তেগবাহাদুর (১৬৬৫- ১৬৭৫ খ্রিস্টাব্দ )

  • শিখদের নবম গুরু ।
  • বিহার ও আসামে শিখ ধর্মপ্রচার করেন ।
  • বান্দা বাহাদুরকে শিখ সেনার প্রধান হিসেবে নিয়োগ করেন ।
  • ঔরঙ্গজেবের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ ঘোষণা করেন ।
  • দিল্লির চাঁদনী চকে জন সাধারণের সমক্ষে ঔরঙ্গজেব তেগ বাহাদুরকে শিরোচ্ছেদ করে হত্যা করেন ।
  • তেগ বাহাদুরকে যেখানে হত্যা করা হয়েছিল সেখানে বর্তমানে “সিস্ গঞ্জ সাহিব গুরুদ্বারা” রয়েছে ।

১০. গুরু গোবিন্দ সিং (১৬৭৫ – ১৭০৮ খ্রিস্টাব্দ )

  • শিখদের দশম গুরু এবং মনুষ্যরূপে শিখদের শেষ গুরু ।
  • পাটনায় জন্মগ্রহণ করেছিলেন ।
  • খালসা প্রথার প্রবর্তন করেছিলেন ।
  • তিনি “দশম পাদশা কা গ্রন্থ” রচনা করেছিলেন ।
  • শিখদের পঞ্চনীতি ( দাড়ি রাখা, পাগড়ি পরা, কৃপাণ রাখা ইত্যাদি ) -এর প্রবর্তন করেন ।
  • সব শিখকে নিজের নামের শেষে সিং উপাধি ব্যবহার করার আদেশ দেন ।
  • মুঘল গভর্নর ওয়াজির খানের প্রেরিত আফগান ঘাতকের ছুরির আঘাতে আহত হন এবং মারা যান ।

মহারাজা রঞ্জিত সিং

  • মহারাজরঞ্জিত সিং শিখগুরু না হলেও শিখদের ইতিহাসে তার অবদান অবিস্বরণীয় ।
  • ১৭৮০ খ্রিস্টাব্দে পাঞ্জাবের গুজরানওয়ালাতে জন্মগ্রহণ করেন ।
  • তিনি সুকেরচকিয়া মিশলের অন্তর্গত ছিলেন ।
  • ১৭৯৯ খ্রিস্টাব্দে তিনি লাহোর দখল করেন এবং গুজরানওয়ালা থেকে লাহোরে নিজের রাজধানী নিয়ে যান ।
  • ১৮০১সালে ১২ এপ্রিল পাঞ্জাবের মহারাজা হিসাবে রণজিৎ সিংকে ঘোষণা করা হয় ।
  • ১৮০২ সালের তিনি এক মুসলিম বাইজী মোরান সরকারকে বিবাহ করেন যার জন্য পরবর্তীকালে তাঁকে শিখ সম্প্রদায়ের কাছে ক্ষমা চাইতে হয় ।
  • তিনি আধুনিক অস্ত্রসস্ত্রে প্রশিক্ষণ দিয়ে তাঁর সেনাবাহিনীকে আধুনিক করে তোলেন ।
  • শের-ই-পাঞ্জাব ( Lion of Punjab ) নামে পরিচিত ছিলেন ।
  • অত্যধিক মদ্যপানের জন্য লিভার খারাপ হয়ে ( মতান্তরে স্ট্রোক হয়ে ) তিনি ১৮৩৯ খ্রিস্টাব্দে মারা যান ।

রঞ্জিত সিংয়ের মৃত্যুর পর,সাম্রাজ্যের অভ্যন্তরীণ বিভাগ এবং রাজনৈতিক অবস্থা দুর্বল হয়ে পড়েছিল। অবশেষে, ১৮৪৯ খ্রিস্টাব্দে অ্যাংলো-শিখ যুদ্ধে পরাজয়ের পর শিখ সাম্রাজ্য বিভক্ত হয়ে যায় |

এই নোটটির PDF ফাইল ডাউনলোড করলে নিচে Download -এ ক্লিক করুন ।



Download

2 Comments
  1. Dipankar Mandal says

    We are very thankful to you for your unrest hard work. Only For you, we can gather more confidence to give the upcoming examinations. But please give us your pdf format of all the series, it’ll help us excellently. A lot of thanks for the team of “BANGLAQUIZ”…

    1. We will gradually start providing PDF files .

Comments are closed.